স্পেতনাজ রাশিয়ান শব্দ। এর ইংরেজি অর্থ হল “স্পেশাল ফোর্স”।রাশিয়ান সেনাবাহিনীর অন্তর্ভুক্ত স্পেশাল এলিট ফোর্স হচ্ছে এই স্পেতনাজ । পৃথিবীর সেরা এলিট স্পেশাল ফোর্সগুলোর মধ্যে বর্তমানে এই রাশিয়ান স্পেতনাজ একটি। হ্যান্ড-টু-হ্যান্ড কম্ব্যাট এ এই স্পেশাল ফোর্স পৃথিবী সেরা। কারন টা হচ্ছে এদের রিক্রুটমেন্ট প্রসেস এবং ট্রেনিং। এই এলিট ফোর্সের হেডকোয়ার্টার মস্কো শহরের খাদিনকো নামক স্থানে। এদের লোগো হচ্ছে “ডানা মেলা বাদুর বা ভ্যাম্পায়ার”

 

ইতিহাস :-

সময়টা ২য় বিশ্বযুদ্ধকালীন।মিখাইল শেকনিকভ নামক একজন রাশিয়ান সামরিক কর্মকর্তা সেনাবাহিনীকে পরামর্শ দিলেন এমন এক ফোর্স প্রস্তুত করতে যারা কিনা কঠিন থেকে কঠিনতম পরিস্থিতিতে নিজেদের বাঁচিয়ে যুদ্ধ চালিয়ে যেতে সক্ষম এবং অভিনব সব কায়দায় শত্রুর উপড়ে অতর্কিত হামলা করে শত্রুকে ধ্বংস করে দিতে সক্ষম হবে। তিনি এদেরকে দানব সেনা বলে অভিহিত করলেন। এরই মাঝে বিশ্বের প্রথম এলিট স্পেশাল ফোর্স এর আবির্ভাব ঘটায় ব্রিটেন “British SAS” নামে। যা সোভিয়েত ইউনিয়ন কে স্পেশাল এলিট ফোর্স গড়ে তুলতে আরো আগ্রহী করে তুলে। পরবর্তীতে ২য় বিশ্বযুদ্ধ শেষ হলে রাশিয়ান সেনাবাহিনী এমন এক এলিট ফোর্সের কথা চিন্তা করল যারা কিনা বিশ্বের সকল এলিট সেনাদের সহজেই রুখে দিতে পারবে। এর ফলশ্রুতিতে জন্ম নিল এক কষ্টসহিষ্ণু এলিট বাহিনী স্পেতনাজ।

রিক্রুটমেন্টঃ

রাশিয়ান সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর সেনাসদস্য এর মধ্য থেকে সেরাদের সেরা কে বাছাই করা হয় এবং তারপর তাদের রেকর্ড আরো একবার যাচাই বাছাই করে ট্রেনিং এর জন্য পাঠিয়ে দেয়া হয়। ট্রেইনিং সফলতার হার মাত্র ২-৩%। এমনকি অনেকসময় একটা স্কোয়াডের কেউই স্পেতনাজ কমান্ডো হয়ে বের হতে পারে না।

ট্রেনিং :-

 

সাধারণ কমান্ডো ট্রেনিং তো রয়েছেই সেই সাথে তাদের রয়েছে ভয়াবহ কষ্টের ট্রেনিং। ট্রেনিং শুরু হয় খালি হাতের যুদ্ধ দিয়ে এই পর্বেই মূলত প্রথম ভাগের হ্যান্ড-টু-হ্যান্ড কম্ব্যাট এর ট্রেনিং হয় যার ভেতর জুডো-কারাতে অন্তর্ভুক্ত থাকে। এর পরে হয় আসল খেলা, যার নাম “ডেডলি সারভাইভাল” যাতে কিনা একজন কমান্ডোকে ২৮ দিন সারভাইভ করতে হয় শুধুমাত্র একটি কমান্ডো-নাইফ এর সাহায্যে বিভিন্ন বনে-জংগলে,আর্কাটিক অঞ্চলে এবং প্রাকৃতিক দূর্যোগপূর্ণ স্থানে। এসময় অন্য এক্সপার্ট স্পেতনাজ-কমান্ডোরা এদেরকে আক্রমণ করে, এবং দূর্বলদের ঘায়েল করে সংখাটা কমিয়ে আনে কিছুটা। এরপর হয় ডেড মিশন যাতে একই বনের মধ্যে কমান্ডোদের ছেড়ে দেয়া হয়; উদ্দেশ্য একটাই অন্যকে আহত করা । যে কমান্ডো অন্য কমান্ডোকে আহত করে সার্ভাইভ করতে পারে সেই উত্তীর্ণ হয় অপরজনকে চিকিৎসা দিয়ে রেগুলার সার্ভিস এ পাঠিয়ে দেয়া হয়। এর পড়ে বাছাইকৃত কমান্ডো দেরকে আরো অনেক অজানা স্থানে বিভিন্ন প্রকার ট্রেইনিং দেয়া হয় এবং বিভিন্ন অত্যাধুনিক সব অস্ত্রশস্ত্র চালনার প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। সর্বশেষে কমান্ডোদের ভেতর আবার মারামারি করে শরীরের কোন একটা হাড় ভাংতে হয়(এটা বাধ্যতামূলক) মূলত ব্যাথা সহ্য করার ক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষেই এই কাজ করা হয়। এর পর সুস্থ হলেই সেই কমান্ডো হয়ে ওঠে একজন স্পেশাল এলিট ফোর্স “স্পেতনাজ কমান্ডো”। তাদের মূলমন্ত্র হলো “বেদনাকে আনন্দ হিসেবে নাও”। একবার ভাবুন ১০+ লক্ষ সৈন্য থেকে বাছাই করে নেয়া হয় মাত্র কয়েকজন যাদের সংখ্যা ১০০ এর ও কম কোন কোন সময়।

অপারেশন এর ধরন :-

সাধারণত সব এলিট স্পেশাল ফোর্স গুলোর কাজের কোন লিমিটেশন থাকে না। তবে এদের উল্লেখযোগ্য কার্জক্ষেত্রের ভেতর রয়েছে, বন্দি উদ্ধার শত্রু অবস্থানে দ্রুতগতিতে হামলা করে ধ্বংস করে দেয়া গোয়েন্দা অভিযান পরিচালনায় সহায়তা এন্টি-টেরোরিজাম অপারেশন নির্দিষ্ট স্থানে স্যাবোটাজ ঘটানো, ইত্যাদি।

 

অস্ত্রশস্ত্রঃ

রাশিয়ান সব আধুনিক অস্ত্র ও গ্যাজেট তারা ব্যবহার করে। এমন অনেক অস্ত্র রয়েছে তাদের হাতে যেগুলা এখনও কেউ চিনতে পারে নি। স্পেতনাজ এর ব্যবহিত কিছু অস্ত্রের মধ্যে আছেঃ

♦AK-12 Assault Rifle

♦AKS-74U carbine

♦VSSVintorez sniper rifle;

♦AS Val assault rifle

♦SV98 sniper rifle

♦AK-9 assault rifle

♦AN-94 assault rifle

♦PP-19 Bizon submachine gun

এছাড়াও স্পেতনাজ কমান্ডো দের কাছে একধরণ এর বিশেষ কমান্ডো নাইফ থাকে যা এতোটাই বিষাক্ত যে ঐ নাইফের একটি আঘাতে যে কারো মৃত্যু অনিবার্য এর বিষক্রিয়ায়। তবে এই কমান্ডো নাইফ টি শুধুমাত্র তখন ই ব্যাবহার করার অনুমিত আছে যখন সে শত্রুর সাথে হ্যান্ড-টু-হ্যান্ড কম্ব্যাটে যাবে এবং সম্পূর্ণ নিরস্ত্র হয়ে যাবে তখন জীবন বাঁচাতে শেষ অবলম্বন হিসেবে এটি ব্যবহার করতে পারবে।

Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: