বাংলাদেশ আর্মির  সীহর্স-১৩  দেশে তৈরী একটি হাই স্পিড সার্ভেইল্যান্স এন্ড অ্যাসাল্ট বোট৷ নারায়ণগঞ্জের শিপবিল্ডার্স কোম্পানি মেটাসেন্টার লিমিটেড এই বোটটির ডিজাইনার এবং নির্মাতা৷ মূলত পদ্মা সেতুর নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা আর্মির রিভারাইন ইউনিটের জন্য এই বোটটি তৈরী করা হয়েছে৷

সীহর্স-১৩ এর হাল অ্যালুমিনিয়ার অ্যালয় দিয়ে তৈরী যা এটিকে সকল পরিবেশে প্রয়োজনীয় রিভার্স বোয়েন্সি প্রদান করে৷ এর দৈর্ঘ্য ১৩.৫ মিটার, প্রস্থ ৪ মিটার, উচ্চতা ১.৮ মিটার এবং ড্রাফট ০.৯ মিটার৷

এটি লেভেল-১ বুলেটপ্রুফ৷ এর ছয়দিকেই কেভলারের আবরণ দেয়া আছে৷ এর ফলে চারপাশ, উপরদিক এমনকি পানির নিচ থেকে হালে ফায়ার করলেও বোটের কোনো ক্ষতি হবে না৷ এটির রয়েছে হাই ইমপ্যাক্ট ফেন্ডার যেগুলো সম্পূর্ণভাবে বুলেট পাঙ্কচার রেসিসটেন্ট৷ এর চারদিকের গ্লাস তিনস্তরের বুলেটপ্রুফ গ্লাস দ্বারা নির্মিত৷

সীহর্সের ইঞ্জিন হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে তিনটি ইয়ামাহা ডিজেল/অক্টেন ইঞ্জিন যার প্রতিটার হর্সপাওয়ার ৩০০ Hp৷ এই বিশাল পরিমাণ হর্সপাওয়ার বোটটিকে প্রতি ঘন্টায় সর্বোচ্চ ৪৫ নটিক্যাল মাইল গতি প্রদান করে৷ এই বোটটি সুপার ম্যানুভরেবল৷ এর টার্নিং সার্কেং অত্যন্ত ছোট এবং স্টপিং ডিসটেন্সও অত্যন্ত কম৷

সীহর্স-১৩ এ সর্বমোট ২০ জন পারসোনেল বহন করা যায়৷ এর মধ্যে দুজন পাইলট এবং ১৮ জন সৈন্য৷ প্রত্যেকটি সিটে রয়েছে সেফটি হার্নেস এবং লাইফ জ্যাকেট৷ এছাড়াও এর প্রতিটি সিট হলো মেরিন সাস্পেনশন সিট এবং এতে শক অ্যাবজর্ভার রয়েছে যা প্রতিটি পারসোনেলের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা এবং আরাম নিশ্চিত করে৷

এর পাইলট কেবিন অতি উন্নতমানের টেকনোলোজি সমৃদ্ধ৷ এতে রয়েছে ওয়েস্টার্ন জিপিএস নেভিগেশন এন্ড ইকো সাউন্ডার৷ এতে ব্যবহার করা হয়েছে Raymarine রাডার যার রেঞ্জ ৩৬ নট৷ পুরো সিস্টেমটি টাচস্ক্রিন মাল্টি ডিসপ্লে সমৃদ্ধ৷ পুরো বোটের ইন্টেরিয়র ফাইবার গ্লাস নির্মিত এবং সম্পূর্ণ এয়ার কন্ডিশন্ড৷ এছাড়াও বোটে রয়েছে ফ্রিজসহ একটি কিচেন এবং উন্নতমানের মডুলার টয়লেট৷ এছাড়াও ইমারজেন্সি এক্সিটের জন্য একটি এস্কেপ হ্যাচ রয়েছে৷ অস্ত্র হিসেবে সীহর্সে তিনটি জেনারেল পারপাস মেশিনগান ব্যবহার করা হয়৷

সীহর্সের কিছু অনন্য বৈশিষ্ট্য রয়েছে৷ এটি একটি কাস্টমাইজেবল প্লাটফর্ম৷ প্রপেলর ইঞ্জিনসহ চার ধরনের প্রপালসন ইঞ্জিন এতে ব্যবহার করা যায়৷ এর সিটগুলোও রিমুভেবল এবং সিট সরিয়ে পুরো জায়গাটাই সাপ্লাই করার কাজে ব্যবহার করা যায়৷ এজন্য সীহর্স-১৩ একটি মাল্টিরোল প্লাটফরম৷

এখন পর্যন্ত দুটো সীহর্স-১৩ হাই স্পিড ইন্টারসেপ্টর বোট নির্মাণ করেছে মেটাসেন্টার যেগুলো এ বছরের প্রথম দিকে উন্মোচিত হয়৷ আরো দুটোর নির্মাণকাজ চলছে৷ ইতোমধ্যে কোস্ট গার্ডও নিজেদের জন্য সীহর্স নেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছে৷ এভাবেই বিদেশ নির্ভরতা কমে দেশে গড়ে উঠছে উন্নত মানের জাহাজ শিল্প যা একই সাথে দেশের অর্থনীতিকে উন্নতির দোরগোরায় পৌঁছে দিচ্ছে এবং বাংলাদেশের সামরিক বাহিনী দেশীয় সরঞ্জামে হয়ে উঠছে আরো শক্তিশালী এবং আধুনিক৷

Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: