এক্স-১২ কমব্যাট ক্রাফট

বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের এক্স-১২ কমব্যাট ক্রাফটহলো ইন্দোনেশিয়ান কোম্পানি পিটি লুনডিনের তৈরী একটি কমব্যাট ক্রাফট৷ এটি মূলত একই কোম্পানির তৈরী এক্স-১৫ এর ওপর বেস করে বানানো একটি আপগ্রেডেড প্লাটফর্ম৷ ২০১৬ সালে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের জন্য এই বোটটিকে সিলেক্ট করা হয় এবং বাংলাদেশ এটিকে টেকনোলজিসহ (ToT–Transfer of Technology) কিনে নেয়৷ বাংলাদেশ নেভীর ইঞ্জিনিয়ারদের পাশপাশি ইন্দোনেশিয়ান ইঞ্জিনিয়ারদের তত্ত্বাবধানে এই বোটগুলো বর্তমানে নারায়ণগঞ্জ শিপইয়ার্ড এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ডকসে তৈরী করা হচ্ছে৷

সাধারন তথ্যাদি :-

এগুলি তৈরি হচ্ছে নারায়ণগঞ্জ ডকইয়ার্ড এ

এক্স-১২ হাই স্পিড বোটগুলো মূলত পেট্রোলিং এবং ইন্টারসেপ্টিং এর কাজ করার উপযোগী করে বানানো হয়েছে। এটি দৈর্ঘ্যে ১১.৭০ মিটার, বিম ৩.৫৪ মিটার ও ড্রাফট ০.৮৪ মিটার। এর হাল ইনফিউজড ভিনাইলস্টার কম্পোজিট ম্যাটেরিয়ালের তৈরী৷ বোটটি খালি অবস্থায় ৯.৭৮ টন এবং এটি ১৩৫০ লিটার ফুয়েল নিতে পারে। ইলেক্ট্রিক্যাল সিস্টেম চালু রাখতে এতে ৪.৫ কিলোওয়াট এর জেনারেটর ব্যবহার করা হয়েছে। এতে আছে ৪৮০ হর্সপাওয়ারের দুটো শক্তিশালী ডিজেল ইঞ্জিন যা একে সর্বোচ্চ ৩৭ নট বা ঘন্টায় প্রায় ৬৮.৫২ কিঃমিঃ গতিতে ছুটতে সাহায্য করে। তবে এর ক্রুজিং স্পিড ৩০ নট। কারণ জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কোনো নৌযানই সবসময় তার ইঞ্জিনের সর্বোচ্চ শক্তিতে চলে না। এতে ওয়াটারজেট/কনভার্টেড প্রপেলর প্রপালসন সিস্টেম ব্যবহার করা যায় এবং একটি ট্রানসম প্লাটফর্ম প্রপালসন সিস্টেমকে সুরক্ষিত রাখে৷ একবার ফুয়েল নিয়ে এটি ৩০০ নটিক্যাল মাইল বা ৫৫৫.৬ কিলোমিটার দূর পর্যন্ত টহল দিতে পারবে। এটি ৩জন ক্রু এবং ৮জন ট্রুপস সহ মোট ১১জন বহন করতে পারে। ক্রুদের জন্য ছোটখাটো টয়লেটের ব্যবস্থাও বোটটিতে আছে।এটি মূলত টহল দেয়ার কাজে ব্যবহার হবে। তারপরও অস্ত্রশস্ত্র হিসেবে একটি ১২.৭ এমএম মেশিনগান আছে কেবিনের উপর। এছাড়া পিছনে (আফটার ডেক) আরো দুটো ৭.৬২ এমএম মেশিনগান বসানো যায়। কমিউনিকেশনের জন্য রয়েছে VHF এবং SSB রেডিও৷ এছাড়াও ক্রুদের লাইফ সেভিং ইকুইমেন্ট হিসেবে অটো অগ্নিনির্বাপক সিস্টেম এবং পোর্টেবল অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র, লাইফ বয়া, লাইফ জ্যাকেট এবং এক্সট্রা Raft রয়েছে৷ এছাড়াও বিপদকালীন সময়ের জন্য একটি ইমারজেন্সি হ্যাচও রয়েছে৷

ফুললি ইন্ট্রিগ্রেটেড নেভিগেশন সিস্টেম, রাডার, কমিউনেকেশন প্যাকেজ সমৃদ্ধ বোটটি নিঃসন্দেহে পেট্রোলিং এর জন্য একটি সেরা অপশন। ইন্দোনেশিয়ার সহযোগিতায় এই প্রজেক্টের আওতায় এরকম মোট ১৬ টি বোট নির্মাণ করা হয়েছে৷

Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: