বাংলাদেশ নৌ-বাহিনী নতুন মেরিটাইম সার্ভে ভেসেল অর্ডার করতে যাচ্ছে।

BNS Discovery নামের এই গবেষনা জাহাজটি জিওলজিক্যাল সার্ভে ও বহুমুখী ওশানোগ্রাফি সার্ভের কাজে ব্যবহার করা হবে। সর্বাধুনিক প্রযুক্তির এই জাহাজটি সবধরনের রাডার, সেন্সর ও অন্যান্য ইকুইপমেন্ট যুক্ত অবস্থায় দেশে আসবে। এই জাহাজটি পরবর্তী ৪০-৫০ বছর ধরে কার্যকর ভাবে ব্যবহার করা যাবে। এবং যুক্তরাজ্য থেকে এই জাহাজটি সংগ্রহ করা হবে।

“ডিসকভারি ” নামের এই সর্বাধুনিক গবেষনা জাহাজটি দিয়ে মেরিন ইকোসিস্টেম, সমুদ্রতটের ভুপ্রাকৃতিক গঠন, মৃৎস সম্পদ,সমুদ্রতটের ধ্বস সম্বন্ধে আগাম পুর্ভাবাস দিতে সক্ষমসহ সমুদ্র তলের অনেক তথ্য নিখুঁতভাবে দিতে সক্ষম।

 

 

জাহাজটি জন্য ২০% টাকা অগ্রিম দেওয়া হয়েছে বলে শোনা যাচ্ছে যদিও তা নিশ্চিত নয়। ১০২ মিটার দৈর্ঘ্য এবং ১৯ মিটার প্রস্থের এ জাহাজে ২৪ জন ক্রু এবং ২৮ জন বিজ্ঞানী একসংগে ১০-১৫ দিন সমুদ্রে থাকতে পারবেন।

 

 

১০০ মিলিয়ন পাউন্ড মুল্যের অত্যাধুনিক এই জাহাজটি ডিজেল-ইলেকট্রিক কম্বাইন্ড পাওয়ারে চালিত।এর ওয়াটার ডিস্পেসমেন্ট ৬১০০ টন।এতে রয়েছে ২০ টন ওজন ধারন ক্ষমতাধারী ক্রেন,গবেষনার জন্য রয়েছে অত্যাধুনিক ল্যাব,আরো আছে ফিটনেস সেন্টার,হাসপাতাল,কনফারেন্স রুম,লণ্ড্রী সেন্টার ইত্যাদি।এছাড়া এটি সাবমারসিবল রোবট,ক্যামেরা,এবং অন্যান্য সেন্সর বহন করে থাকে।

নি:সন্দেহে এই জাহাজটি আমাদের মৎস এবং জীববৈচিত্র রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখবে।

Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: