এলসিটি অপরাজেয়: দেশে নির্মাণাধীন বাংলাদেশ আর্মির নতুন এবং সর্ববৃহৎ এলসিটি

এলসিটি অপরাজেয় –নামটি সবারই একটু অচেনা৷ বাংলাদেশ আর্মির নতুন এলসিটি (ল্যান্ডিং ক্রাফট ট্যাংক) হিসেবে আগামী বছরই আত্মপ্রকাশ করতে যাচ্ছে এই দানবীয় ল্যান্ডিং ক্রাফটটি৷ এর আগে দেশীয়ভাবে নির্মিত বাংলাদেশ আর্মির এখন পর্যন্ত সর্ববৃহৎ ল্যান্ডিং ক্রাফট এলসিটি শক্তি সঞ্চার নিয়ে লিখেছিলাম৷ শক্তি সঞ্চারের কিছু ঘাটতি থাকায় এবং বাংলাদেশ আর্মির নতুন বৃহদাকৃতির এলসিটির প্রয়োজন থাকায় এলসিটি অপরাজেয় আসছে আর্মিতে নিজের যোগ্যতা প্রমাণের জন্য৷ একই সাথে এই ল্যান্ডিং ক্রাফটটি আগের শক্তি সঞ্চারের জায়গা দখল করে সর্ববৃহৎ এলসিটির তকমা দখল করতে যাচ্ছে৷

এলসিটি অপরাজেয় এর মূল মডেলটি এলসিটি-৬৯ হিসেবে পরিচিত৷ নারায়ণগঞ্জের শিপবিল্ডার্স কোম্পানি মেটাসেন্টার লিমিটেড এর ডিজাইনার এবং নির্মাতা৷ এই প্রজেক্টটি খুলনা শিপইয়ার্ডের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে নির্মিত হবে৷

নতুন ও অত্যাধুনিক এই দানবীয় এলসিটির দৈর্ঘ্য ৬৮.৫ মিটার, প্রস্থ ১২.৫ মিটার এবং উচ্চতা ৩.৫ মিটার৷ এর ড্রাফট ১.৮ মিটার৷ এর বডি সম্পূর্ণ স্টিল নির্মিত৷

এই এলসিটির সবচেয়ে আকর্ষণীয় দিক হলো এর ক্যাপাসিটি৷ এটি ৮টি মেইন ব্যাটল ট্যাংক এবং ৩০০ জন সৈন্য বহনে সক্ষম৷ এছাড়াও রয়েছে একটি হেলিপ্যাড যাতে একটি হেলিকপ্টার ল্যান্ড করতে পারে৷ শক্তি সঞ্চারের মতো এরও চারদিকে ল্যান্ডিংয়ের ব্যবস্থা রয়েছে৷

আগের এলসিটি শক্তি সঞ্চারের কিছু ঘাটতি ছিলো৷ এর মধ্যে প্রধান সমস্যা ছিলো এটি জোয়ার-ভাটায় স্ট্যাবল থাকতে পারতো না৷ কিন্তু অপরাজেয় মডেলে এই সমস্যার সমাধান করা হয়েছে৷ এছাড়া এই মডেলে তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থাও রয়েছে যা শক্তি সঞ্চারে ছিলো না৷ এর মাধ্যমে বাইরের তাপমাত্রা থেকে ভিতরের তাপমাত্রা প্রয়োজনানুযায়ী কমানো কিংবা বাড়ানো যায়৷

এর ইঞ্জিন এবং অস্ত্রশস্ত্র সম্পর্কে এখনো তেমন কিছু জানা যায়নি৷ তবে যতটুকু জানা যায় তা হলো এর স্পিড হবে ১৪ নট৷

এ বছরের প্রথমদিকে এই ডিজাইনটি বাংলাদেশ আর্মির হেডকোয়ার্টারে পাঠানো হয়৷ আর্মি হেডকোয়ার্টার এটিকে যাচাই-বাছাই করে এবং এটি সফলভাবে অনুমোদন পায়৷ বাংলাদেশ আর্মি এই মডেলের দুটো এলসিটি অর্ডার করেছে যা বর্তমানে নারায়ণগঞ্জে নির্মাণাধীন রয়েছে৷ বলাই বাহুল্য, এই দুটো এলসিটির কাজ শেষ হলে বাংলাদেশ আর্মির সক্ষমতা অনেকাংশে বেড়ে যাবে এবং আবারও আমাদের শিপবিল্ডার্স কোম্পানিগুলোর সক্ষমতা প্রমাণ হবে৷

Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: